image217
Khaledakebachao

Welcome

Khaleda Zia is the Chairperson of BNP who was the first women in the history of Bangladesh and second in the Muslim majority countries to head a democratic government as Prime Minister.  She served as the Prime Minister of Bangladesh from 1991 to 1996, and again from 2001 to 2006.  


image218

Rashida Ahmed Moon

Press Releases: Message of Condolences on the Passing Away of Rashida Ahmed Moon, former Co-Chair of BNP, NY, USA. 


Khaledakebachao.com is deeply saddened to learn of the passing away of Rashida Ahmed Moon, former Co-Chair of BNP, NY, USA, on 30 April 2020.

We wish to extend our profound condolences and sympathy to Rashida Ahmed Moon's family during this time of mourning. Rashida Ahmed Moon triumph over discrimination and prejudice, as well as her struggle for freedom, democracy, peace and equality shall forever remain her legacy and serve as an                                                           inspiration to us all. 

Khaleda Zia Has been released from jail on conditions.

image219

March 25, 2020: The Former Prime Minister of Bangladesh Khaleda Zia has been released from jail on humanitarian grounds for six months on condition she stays at home and does not leave the country.  We must not accept this outcome and we demand her unconditional release from jail for emergency medical treatment. Yet, absolutely, she is a political prisoner and she needs an emergency medical treatment.  Let's offer our hands to help humanity. Together we can make a difference. Sign up for a petition to US congress & United Nations Human Rights Council (OHCHR). 

image220

khaledakebachao.com

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদার মুক্তির দাবিতে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ‘খালেদাকে বাঁচাও ডটকম’র যাত্রা শুর

ইউএসএনিউজঅনলাইন.কম : বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী এবং বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি পিটিশনে স্বাক্ষরের জন্য যুক্তরাষ্ট্র থেকে ‘খালেদাকে বাঁচাও ডটকম’ নামে একটি ওয়েবসাইট খোলা হয়েছে। এরই মধ্যে এর কাজও শুরু হয়েছে। নিউইয়র্কে জ্যাকসন হাইটসে পালকি পার্টি সেন্টারে গত ২৯ ফেব্রুয়ারি দুপুরে সচেতন নাগরিক সমাজ, যুক্তরাষ্ট্র আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান হয়।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদার মুক্তির দাবিতে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ‘খালেদাকে বাঁচাও ডটকম’র যাত্রা শুরু

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে দেশে ও প্রবাসে দেশ ও জাতির বৃহত্তর স্বার্থে, স্বাধীনতা ও সাবভৌমত্বকে সমুন্নত রেখে সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে কাজ করছি। আমরা মনে করি ৭৪ বছর বয়সী অসুস্থ্য খালেদা জিয়াকে দীর্ঘদিন কারাগারে রাখাটা মানবিক দিক থেকেও অন্যায়। আমরা সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নি:শর্ত মুক্তি চাই। বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসনসহ বিশ্ব নেতৃবৃন্দকে জানানো এবং অসুস্থ খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে পিটিশনে স্বাক্ষরের জন্য ‘খালেদাকে বাঁচাও ডটকম’ (www.khaledakebachao.com) নামে ওয়েবসাইটটি খোলা হয়। এরই মধ্যে পিটিশনে গণ স্বাক্ষরের কাজ শুরু হয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, ১৯৮৩ সালে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিএনপি সাত দলীয় জোট গঠন করে এবং জেনারেল এরশাদের স্বৈরাচারী শাসনের বিরুদ্ধে অবিরাম সংগ্রাম শুরু করে। অন্য প্রধান রাজনৈতিক পার্টিগুলো সমঝোতা করলেও খালেদা জিয়া নয় বছরব্যাপী আন্দোলনে এরশাদের অবৈধ ও অগণতান্ত্রিক সরকারের সঙ্গে আপোস করেননি। তাই তখন তার নাম হয় আপোসহীন নেত্রী। খালেদা তার নীতিতে অবিচল ছিলেন।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথম মহিলা এবং মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশগুলিতে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে গণতান্ত্রিক সরকারের নেতৃত্বে দ্বিতীয় ছিলেন। ১৯৯১ থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত বেগম খালেদা জিয়া দুইবার প্রধানমন্ত্রী ছিলেন এবং তৃতীয়বার তিনি ছিলেন ২০০১ থেকে ২০০৬ পর্যন্ত। জানুয়ারি ১৯৯১, ফেব্রুয়ারি ১৯৯৬, জুন ১৯৯৬ এবং অক্টোবর ২০০১, ডিসেম্বর ২০০৮-এর সাধারণ নির্বাচনে সুদীর্ঘ ১৮ বছরে মোট পাঁচটি সাধারণ নির্বাচনে যে সর্বোচ্চ ২৩টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে সব কয়টিতেই বিজয়ী হন বেগম খালেদা জিয়া। বাংলাদেশের অন্য কোনো পলিটিশিয়ান এই সাফল্যের ধারে কাছেও যেতে পারেননি। সম্ভবত মোট ২৩টি আসনে তার প্রাপ্ত ভোটের সংখ্যা একটি বিশ্ব রেকর্ডও।

The Platform

Sign the petition

Subscribe

Sign up to hear get an update.